এই নিবন্ধের জন্য GPX ফাইল ডাউনলোড করুন

এশিয়া > দক্ষিণ এশিয়া > বাংলাদেশ > চট্টগ্রাম বিভাগ > ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা > বাঞ্ছারামপুর উপজেলা

বাঞ্ছারামপুর উপজেলা

উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন


বাঞ্ছারামপুর উপজেলা বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অন্তর্গত একটি প্রশাসনিক এলাকা। ২৩°৪১´ উত্তর অক্ষাংশ হতে ২৩°৫৩´ উত্তর অক্ষাংশের এবং ৯০°৪৪´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ হতে ৯০°৫৩´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত এই উপজেলাটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হতে ৮২ কিলোমিটার দূরে জেলার দক্ষিণ-পশ্চিম প্রান্তে অবস্থিত। এর উত্তরে নরসিংদী সদর উপজেলা; দক্ষিণে হোমনা উপজেলা; পূর্বে নবীনগরমুরাদনগর উপজেলা এবং পশ্চিমে নরসিংদী সদরআড়াইহাজার উপজেলা

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

বাঞ্ছারামপুর থানা গঠিত হয় ১৯০৪ সালে এবং থানাকে উপজেলায় রূপান্তর করা হয় ১৯৮৩ সালে।

এটি একমাত্র উপজেলা যেখানে জেলাসদর থেকে সরাসরি যাওয়া যায় না; হওর বেষ্টিত এই উপজেলাটি জেলার সবচেয়ে অনুন্নত স্থান।

কিভাবে যাবেন[সম্পাদনা]

বাসে করে[সম্পাদনা]

বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় যেতে হলে দেশের যেকোন স্থান হতে জেলা সদর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসে সেখানকার কাউতলী / পৈরতলা বাস স্ট্যান্ড হতে বাসযোগে কুমিল্লার কোম্পানীগঞ্জ, মুরাদনগর, হোমনা উপজেলায় গিয়ে সেখান থেকে স্থানীয় বাহনে বাঞ্ছারামপুর সদর যেতে হবে।

রেলে করে[সম্পাদনা]

ঢাকা-সিলেট বা ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে চলাচলকারী ট্রেনে আশুগঞ্জ বা ব্রাহ্মণবাড়ীয়া বা নরসিংদী এসে সেখান থেকে নরসিংদীর বেলানগর লঞ্চ ঘাট যেতে হবে। বেলানগর হতে লঞ্চ / স্পিড বোটে মরিচাকান্দি গিয়ে সেখান থেকে টেম্পু / সিএনজিযোগে বাঞ্ছারামপুর সদর যেতে হবে।

লঞ্চে করে[সম্পাদনা]

দেশের যেকোন স্থান হতে জেলা সদর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসে সেখানকার গোকর্ণ ঘাট হতে লঞ্চযোগে নবীনগর ভায়া হয়ে বাঞ্ছারামপুর সদর যেতে হবে।

ঘুরে দেখুন[সম্পাদনা]

দর্শনীয় স্থান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

  • খোশকান্দি জামে মসজিদ;
  • বাঞ্ছারামপুর সদর জামে মসজিদ;
  • ধারিয়ারচর জামে মসজিদ;
  • উজান চর কালীমন্দির;
  • রূপসদী দক্ষিণবাজার কালীমন্দির;
  • রাহাত আলী শাহ্-এর মাযার - সাইফুল্লা কান্দি;
  • কান্দুশাহের মাযার;
  • মেঘনা গ্যাস ফিল্ড;
  • রূপসদী জমিদার বাড়ী;
  • উজানচর জমিদার বাড়ী;
  • সালিমাবাদ ব্রীজ।

খাওয়া দাওয়া[সম্পাদনা]

বাঞ্ছারামপুর-এ স্থানীয় পর্যায়ের বিশেষ কোনো বিখ্যাত খাদ্য নেই। তবে স্থানীয় লেবু এবং লটকনের বেশ সুখ্যাতি রয়েছে। হাওড় এলাকা বলে প্রচুর মাছ পাওয়া যায় এবং খামার ভিত্তিক হাঁস পালন করা হয়। এখানে সাধারণভাবে দৈনন্দিন খাওয়া-দাওয়ার জন্য স্থানীয় হোটেল ও রেস্টুরেন্টগুলোতে সুস্বাদু খাবার পাওয়া যায়। স্থানীয় পর্যায়ের উন্নতমানের ও নিরিবিলি পরিবেশের রেস্তোরা হিসাবে এখানে রয়েছেঃ

  • হোটেল সুমন;
  • দত্ত হোটেল - প্রতাপগঞ্জ বাজার, বাঞ্ছারামপুর।

থাকা ও রাত্রী যাপনের স্থান[সম্পাদনা]

বাঞ্ছারামপুর-এ থাকার জন্য স্থানীয় পর্যায়ের কিছু আবাসিক হোটেল রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে সরকারি ব্যবস্থাপনাধীনের আবাসন ব্যবস্থা। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলোঃ

  1. জেলা পরিষদ ডাক বাংলো - সরকারি ব্যবস্থাধীন।
  2. দত্ত হোটেল - প্রতাপগঞ্জ বাজার, বাঞ্ছারামপুর।

জরুরী নম্বরসমূহ[সম্পাদনা]

জননিরাপত্তা সম্পর্কিত যোগাযোগের জন্য
  • সহকারী পুলিশ সুপার, সদর সার্কেলঃ ০১৭১৩৩৭৩৭২৬;
  • ওসি আশুগঞ্জঃ ০১৭১৩৩৭৩৭৩২;
  • ওসি বাঞ্ছারামপুরঃ ০১৭১৩৩৭৩৭৩৫;
  • ওসি ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ ০১৭১৩৩৭৩৭৩০।

বিষয়শ্রেণী তৈরি করুন