এই নিবন্ধের জন্য GPX ফাইল ডাউনলোড করুন

এশিয়া > দক্ষিণ এশিয়া > ভারত > পূর্ব ভারত > পশ্চিমবঙ্গ > দক্ষিণপশ্চিম বঙ্গ > শংকরপুর

শংকরপুর

উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

শঙ্করপুর পশ্চিম বঙ্গের একটি সৈকত শহর। শহরটি পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় অবস্থিত।

কিভাবে যাবেন[সম্পাদনা]

কলকাতা থেকে সৈকত শহর শংকরপুর ১৮৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

সড়কপথ[সম্পাদনা]

বাস[সম্পাদনা]

বাসগুলি কলকাতার ধর্মতলা / এসপ্লানেড বাস স্টেশন থেকে শংকরপুরে উদ্দেশ্যে চলাচল করে।

গাড়ী করে[সম্পাদনা]

কলকাতা থেকে যদি আপনি শংকরপুর যেতে চান - তাহলে নিম্নোক্ত নির্দেশগুলি দেখুন: দ্বিতীয় হুগলি সেতু (বিদ্যাসাগর সেতু) পর করে কোনার এক্সপ্রেসওয়ে (একটি ৪-রাস্তা রাস্তা) অনুসরণ করুন। কাননা এক্সপ্রেসওয়ে-বোম্বার রোড জংশন থেকে আপনাকে বাম দিকে ৩০-৪০ মিনিট গাড়ী চলাতে হবে বম্বে রোড (জাতীয় সড়ক ১৬) ধরে। যতক্ষণ না আপনি রুপনারায়ণ নদী অতিক্রম করেন (সেতুটি ১-পথ এবং নদী প্রশস্ত)। নদী পার হওয়ার পর আপনি আপনার বামদিকে কোলাঘাট তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র দেখতে পাবেন। তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের পর একটি সড়ক সংযোগে অবিলম্বে, হালদিয়ার দিকের সড়ক ধরুন।

রেল পথ[সম্পাদনা]

  • ১২৮৫৭ তাম্রলিপ্ত এক্সপ্রেস: হাওড়া স্টেশন থেকে সকাল ৬:৪০ টায় ছাড়ে এবং দীঘা স্টেশনে সকাল ১০ টায় পৌচ্ছায়।
  • ১৮০০১ কান্ডাড়ী এক্সপ্রেস: হাওড়া স্টেশন থেকে সকাল ৭:৩০ টায় ছাড়ে এবং দীঘা স্টেশনে দুপুর ১২ টায় পৌচ্ছায়।
  • ১২৮৪৭ দুরন্ত এক্সপ্রেস: হাওড়া স্টেশন থেকে সকাল ১১:১৫ টায় ছাড়ে এবং দীঘা স্টেশনে দুপুর ২.১৫ টায় পৌচ্ছায়।
  • ১৫৭২২ পাহাড়ী এক্সপ্রেস: হাওড়া স্টেশন থেকে দুপুর ১২:১৫ টায় ছাড়ে এবং দীঘা স্টেশনে বিকাল ৫:৫০ টায় পৌচ্ছায়।

ঘুরে দেখুন[সম্পাদনা]

সমুদ্র সৈকতে পৌঁছার পর, আপনি অবিরাম প্রশস্ত সৈকত দেখতে পাবেন। বাম দিকে, প্রায় ৪৫ মিনিট হাঁটার পর, আপনি মন্দর মণি-একটি ছোট সমুদ্র সৈকত পৌঁছাবেন। কিন্তু সৈকতে আপনার গাড়ী নিবেন না কারণ আপনি চোরাবালিতে আটকা পড়তে পারেন। রাতে সাধারণত সৈকত নিরব থাকে।

কি দেখবেন[সম্পাদনা]

সৈকত[সম্পাদনা]

হোটেল স্যান্ডি বে কাছাকাছি সমুদ্র সৈকতে ভিড় নেই - দুর্ভাগ্যবশত এখানে জায়গা জুড়ে ছড়িয়ে গাছে গুড়ি। সৈকতের বিভিন্ন স্থান কাদাযুক্ত। তবে পর্যটন দফতরের কাছাকাছি সৈকতটি ভাল।

বিষয়শ্রেণী তৈরি করুন