উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন

মৌলভীবাজার শহর হলো বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত একটি প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী শহর, যা সিলেট বিভাগের অন্তর্গত মৌলভীবাজার জেলায় পড়েছে। এটি মূলত মৌলভীবাজার পৌরসভা, যা ৯টি ওয়ার্ডে বিভক্ত এবং সুরমা নদীর পারে বিস্তৃত। এই শহরটি রাজধানী ঢাকা থেকে ২০৩ কিলোমিটার এবং বিভাগীয় শহর সিলেট থেকে ৭৬ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

কীভাবে যাবেন?[সম্পাদনা]

স্থলপথে[সম্পাদনা]

সড়কপথে ঢাকা হতে মৌলভীবাজারের দূরত্ব ২০৩ কিলোমিটার এবং রেলপথে ঢাকা হতে শ্রীমঙ্গল রেল স্টেশনের দূরত্ব ২৩১ কিলোমিটার; এখানে রেল যোগাযোগ নেই বিধায়, প্রথমে শ্রীমঙ্গল এসে তারপর মৌলভীবাজার শহরে আসতে হয়।

সড়কপথ[সম্পাদনা]

ঢাকার সায়েদাবাদ, ফকিরাপুলমহাখালী বাস স্টেশন থেকে মৌলভীবাজারে আসার সরাসরি দুরপাল্লার বাস সার্ভিস আছে; এগুলোতে সময় লাগে ৪ হতে ৫ ঘণ্টা। ঢাকা থেকে সরাসরি মৌলভীবাজারে আসার জন্য পরিবহন কোম্পানিগুলো হচ্ছে - হানিফ এন্টারপ্রাইজ (এসি ও নন-এসি), শ্যামলী পরিবহন (এসি ও নন-এসি), সিলেট এক্সপ্রেস (নন-এসি), মৌলভীবাজার সিটি (নন-এসি), টিআর ট্রাভেলস (এসি), রূপসী বাংলা (এসি ও নন-এসি) এবং তাজ পরিবহন (নন-এসি)।

  • ঢাকা-মৌলভীবাজার রুটে সরাসরি চলাচলকারী পরিবহনে আসার ক্ষেত্রে ভাড়া হলোঃ
    • এসি বাসে - ৮০০ টাকা এবং
    • নন-এসি বাসে - ৩৫০ টাকা।
  • সরাসরি চলাচলকারী পরিবহনগুলোর তথ্য পেতে যোগাযোগ করতে হবেঃ
    • হানিফ এন্টারপ্রাইজ - মোবাইল: +৮৮০১৭১১-৯২২ ৪১৭;
    • শ্যামলী পরিবহন - মোবাইল: +৮৮০১৭১১-৯৯৬ ৯৬৫;
    • সিলেট এক্সপ্রেস - মোবাইল: +৮৮০১৭১৩-৮০৭ ০৬৯;
    • মৌলভীবাজার সিটি - মোবাইল: +৮৮০১৭১৬-২৯১ ১১২;
    • টিআর ট্রাভেলস - মোবাইল: +৮৮০১৭১২-৫১৬ ৩৭৮;
    • রূপসী বাংলা - মোবাইল: +৮৮০১৭১৩-৮০৭ ০৬৯;
    • তাজ পরিবহন - মোবাইল: +৮৮০১৭১৬-৩৮৭ ৯৩১।

এছাড়াও সিলেট বিভাগের যেকোন স্থানের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা দুরপাল্লার বাসে শ্রীমঙ্গলের মিরপুর বা শেরপুর এসে সেখান থেকে বাস, ম্যাক্সি, লেগুনা, সিএসজি অটোরিক্সা, জীপ প্রভৃতিতে করে মৌলভীবাজার শহরে আসা যায়। মিরপুর ও শেরপুর হচ্ছে সড়কপথে সিলেট বিভাগের অন্যতম প্রবেশদ্বার ও প্রধান বাস স্টেশন এবং এখান দিয়েই মূল ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক বিস্তৃত বলে যেকোন বাসে এখানে এসে তারপর মৌলভীবাজার আসা সম্ভব। ঢাকা থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে হানিফ, শ্যামলী, এনা, ইউনিক, মামুন, সাউদিয়া, গ্রীনলাইন, মিতালি প্রভৃতি পরিবহন কোম্পানীর বাস আছে প্রতি ১০ মিনিট পর পর।

  • ঢাকা-সিলেট রুটে সরাসরি চলাচলকারী পরিবহনে মিরপুর বা শেরপুর আসার ক্ষেত্রে ভাড়া হলোঃ
    • এসি বাসে - ১২০০ টাকা এবং
    • নন-এসি বাসে - ৪০০ টাকা।

৭৬ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত বিভাগীয় শহর সিলেট হতে 'হবিগঞ্জ বিরতিহীন এক্সপ্রেস' বাসে ২ থেকে ২:৩০ ঘণ্টায় মৌলভীবাজার আসা যায়। এপথে ভাড়া নেয়া হয় ১২০ টাকা।

রেলপথ[সম্পাদনা]

মৌলভীবাজার আসার জন্য সরাসরি রেল যোগাযোগ নেই; এখানে আসতে হয় শ্রীমঙ্গল হয়ে। ঢাকা থেকে সবচেয়ে নিকটবর্তী ও আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রাবিরতির স্থান শ্রীমঙ্গল রেল স্টেশনের দূরত্ব ২৩১ কিলোমিটার।

ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশন বা চট্টগ্রাম রেল স্টেশন থেকে সিলেটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা ট্রেনে সরাসরি শ্রীমঙ্গল এসে সেখান থেকে সড়ক পথে মৌলভীবাজার আসা যায়; কারণ শ্রীমঙ্গল হচ্ছে রেলপথে সিলেট বিভাগে প্রবেশের অন্যতম প্রধান স্টেশন এবং এই শহরটির উপর দিয়েই মূল ঢাকা-সিলেট ও চট্টগ্রাম-সিলেট রেলপথটি বিস্তৃত। কমলাপুর রেল স্টেশন ও চট্টগ্রাম রেল স্টেশন থেকে প্রতিদিন একাধিক ট্রেন সিলেটের উদ্দেশ্যে ছাড়ে। ঢাকা – সিলেট এবং চট্টগ্রাম – সিলেট রুটে চলাচলকারী ট্রেনগুলো হলোঃ

  • ৭১০ পারাবত এক্সপ্রেস - শ্রীমঙ্গল হতে দুপুর ০৪ টা ৪৮ মিনিটে ছাড়ে এবং ঢাকায় রাত ০৯ টা ৪৫ মিনিটে পৌছে (মঙ্গলবার বন্ধ) ও ঢাকা থেকে ভোর ০৬ টা ৩৫ মিনিটে ছাড়ে এবং শ্রীমঙ্গল পৌছে সকাল ১০ টা ৫২ মিনিটে (মঙ্গলবার বন্ধ);
  • ৭১৮ জয়ন্তীকা এক্সপ্রেস - শ্রীমঙ্গল হতে সকাল ০৯ টা ২১ মিনেটে ছাড়ে এবং ঢাকায় বিকাল ০৪ টায় পৌছে (বৃহস্পতিবার বন্ধ) ও ঢাকা থেকে দুপুর ১২ টায় ছাড়ে এবং শ্রীমঙ্গল পৌছে সন্ধ্যা ০৬ টা ৪৪ মিনিটে (কোন বন্ধ নেই);
  • ৭২০ পাহাড়ীকা এক্সপ্রেস - শ্রীমঙ্গল হতে দুপুর ১২ টা ৩৬ মিনিটে ছাড়ে এবং চট্টগ্রামে রাত ০৭ টা ৪৫ মিনিটে পৌছে (শনিবার বন্ধ) ও ঢাকা থেকে দুপুর ১২ টায় ছাড়ে এবং শ্রীমঙ্গল পৌছে দুপুর ০২ টা ২৮ মিনিটে (সোমবার বন্ধ);
  • ৭২৪ উদয়ন এক্সপ্রেস - শ্রীমঙ্গল হতে রাত ১১ টা ১১ মিনিটে ছাড়ে এবং চট্টগ্রামে ভোর ০৫ টা ৫০ মিনিটে পৌছে (রবিবার বন্ধ) ও ঢাকা থেকে দুপুর ১২ টায় ছাড়ে এবং শ্রীমঙ্গল পৌছে রাত ০৩ টা ২৭ মিনিটে (রবিবার বন্ধ);
  • ৭৪০ উপবন এক্সপ্রেস - শ্রীমঙ্গল হতে রাত ১২ টা ১২ মিনিটে ছাড়ে এবং ঢাকায় ভোর ০৫ টা ১০ মিনিটে পৌছে (কোন বন্ধ নেই) ও ঢাকা থেকে রাত ০৯ টা ৫০ মিনিটে ছাড়ে এবং শ্রীমঙ্গল পৌছে রাত ২ টা ৫০ মিনিটে (বুধবার বন্ধ);
  • ৭৭৪ কালনী এক্সপ্রেস - শ্রীমঙ্গল হতে সকাল ০৮ টা ৫০ মিনিটে ছাড়ে এবং ঢাকায় দুপুর ০১ টা ২৫ মিনিটে পৌছে (শুক্রবার বন্ধ) ও ঢাকা থেকে বিকাল ০৪ টায় ছাড়ে এবং শ্রীমঙ্গল পৌছে রাত ৮ টা ০৫ মিনিটে (শুক্রবার বন্ধ)।
  • ঢাকা-সিলেট রুটে চলাচলকারী ট্রেনে শ্রীমঙ্গল আসার ক্ষেত্রে ভাড়া হলোঃ
    • ২য় শ্রেণির সাধারণ - ৬০ টাকা;
    • ২য় শ্রেণির মেইল - ৮০ টাকা;
    • কমিউটার - ১০০ টাকা;
    • সুলভ - ১২০ টাকা;
    • শোভন - ২০০ টাকা;
    • শোভন চেয়ার - ২৪০ টাকা;
    • ১ম শ্রেণির চেয়ার - ৩২০ টাকা;
    • ১ম শ্রেণির বাথ - ৪৮০ টাকা;
    • স্নিগ্ধা - ৪৬০ টাকা;
    • এসি সীট - ৫৫২ টাকা এবং
    • এসি বাথ - ৮২৮ টাকা।

ট্রেন সম্পর্কিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেনঃ

  • শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে স্টেশন, শ্রীমঙ্গল, ☎ ০৮৬২৬-৭১৩৫০, মোবাইল: +৮৮০১৯২৫-৪৭১ ৬২১;
  • কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন, ☎ ০২-৯৩৫৮৬৩৪,৮৩১৫৮৫৭, ৯৩৩১৮২২, মোবাইল: +৮৮০১৭১১৬৯১৬১২;
  • বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশন, ☎ ০২-৮৯২৪২৩৯;
  • ওয়েবসাইট: www.railway.gov.bd।

আকাশপথে[সম্পাদনা]

এই শহরটিতে সরাসরি বিমানে চলাচলের কোনো ব্যবস্থা এখনো তৈরি হয় নি; তবে ঢাকা হতে সিলেটে আকাশ পথে বিমানে এসে সেখান থেকে সড়কপথে সরাসরি কিংবা রেলপথে শ্রীমঙ্গল এসে সেখান থেকে মৌলভীবাজার আসা যায়। ঢাকা থেকে সিলেটে আসার জন্য বাংলাদেশ বিমান, জেট এয়ার, নোভো এয়ার, রিজেন্ট এয়ার, ইউনাইটেড এয়ার - প্রভৃতি বিমান সংস্থার বিমান পরিষেবা রয়েছে।

ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের একটি করে ফ্লাইট সপ্তাহে ৪ দিন ঢাকা- সিলেট ও সিলেট-ঢাকা রুটে চলাচল করে; ভাড়া লাগবে একপথে ৩,০০০/- এবং রিটার্ণ টিকিট ৬,০০০/-। সময়সূচী হলোঃ

  • ঢাকা হতে সিলেট - শনি, রবি, মঙ্গল, বৃহস্পতি - সকাল ১১ টা ২০ মিনিট এবং দুপুর ১২ টায়।
  • সিলেট হতে ঢাকা - শনি, রবি, মঙ্গল, বৃহস্পতি - দুপুর ১২ টা ২০ মিনিট এবং দুপুর ০১ টায়।

এই সম্পর্কিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেনঃ

  • কর্পোরেট অফিস: উত্তরা টাওয়ার (৬ষ্ঠ তলা), ১ জসিম উদ্দিন এভিনিউ, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০, ☎ ০২-৮৯৩২৩৩৮, ৮৯৩১৭১২, ইমেইল: info@uabdl.com, ফ্যাক্স: ৮৯৫৫৯৫৯;
  • ঢাকা এয়ারপোর্ট সেলস অফিস: ডমেস্টিক উইং কুর্মিটোলা, শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, ঢাকা-১২৩০, ☎ ০২৮৯৫৭৬৪০, ৮৯৬৩১৯১, মোবাইল: +৮৮০১৭১৩-৪৮৬৬৬০;
  • ওয়েবসাইট: www.uabdl.com।

জলপথে[সম্পাদনা]

প্রচুর হাওড় ও নদী এবং বিল থাকা সত্ত্বেও দেশের অন্যান্য অঞ্চলের সাথে এখানকার সরাসরি নৌ পথে যোগাযোগ ব্যবস্থার প্রচলন নেই বললেই চলে; কেবলমাত্র সিলেট ও হবিগঞ্জের কিছু এলাকা ও এই জেলার কিছু অঞ্চল থেকে এখানে সরাসরি নৌ পথে আসা যায়।

দর্শনীয় স্থান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

  • শাহ মোস্তফা-এর মাজার - মৌলভীবাজার শহরের কেন্দ্রস্থলের বেড়ীরপাড়ের দক্ষিণ তীর;
  • চা বাগানসমূহ;
  • খোজার মসজিদ।
  • মাধবকুন্ড জলপ্রপাত
  • হামহাম জলপ্রপাত

খাওয়া দাওয়া[সম্পাদনা]

মৌলভীবাজারে স্থানীয় পর্যায়ের বিশেষ কোনো বিখ্যাত খাদ্য নেই, কেবল আখনী পোলাও ও সাতকরা (হাতকরা) ব্যতীত। এখানকার মাস্টার কেবিনের রসগোল্লা খুব বিখ্যাত। তবে স্থানীয় আনারস, কমলা, পান, লেবু এবং কাঠালের বেশ সুখ্যাতি রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে চা-পাতা। হাওড় এলাকায় প্রচুর মাছ পাওয়া যায় এবং খামার ভিত্তিক হাঁস পালন করা হয়। এখানে সাধারণভাবে দৈনন্দিন খাওয়া-দাওয়ার জন্য স্থানীয় হোটেল ও রেস্টুরেন্টগুলোতে সুস্বাদু খাবার পাওয়া যায়।

থাকা ও রাত্রিযাপনের স্থান[সম্পাদনা]

মৌলভীবাজার ও তার আশেপাশে থাকার জন্য সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় স্থানীয় পর্যায়ের কিছু মানসম্মত আবাসন এবং রেস্ট হাউস ও হোটেল রয়েছে, যেখানে ৪০০ থেকে ২০,০০০ টাকায় বিভিন্ন ধরণের রুম পাওয়া যায়। এসব আবাসন এবং রেস্ট হাউস ও হোটেলের মধ্যে রয়েছেঃ

  • সার্কিট হাউস : কোর্ট রোড, মৌলভীবাজার, ☎ ০৮৬১-৬৩০২৫;
  • হোটেল সোনাগাঁও : শ্রীমঙ্গল রোড, মৌলভীবাজার;
  • পর্যটন রেস্ট হাউজ : কুসুমবাগ, মৌলভীবাজার;
  • সেরাটন প্লাজা : কুসুমবাগ, মৌলভীবাজার, ☎ ০৮৬১-৫২০২০;
  • হোটেল হেলাল : সাইফুর রহমান রোড, মৌলভীবাজার;
  • গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট এন্ড গলফ সেন্টার : রাধানগর, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার, মোবাইল: +৮৮০ ১৭৩০ ৭৯৩ ৫৫২-৯।