উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন

হাড়বাড়িয়া ইকো-পর্যটন কেন্দ্র সুন্দরবনের পশুর নদীর তীরে অবস্থিত।

বর্ণনা[সম্পাদনা]

প্রবেশ মূল্য[সম্পাদনা]

হারবাড়িয়া ইকো ট্যুরিজম কেন্দ্রে পর্যটকের জন্য প্রবেশ মূল্য: দেশি পর্যটক জনপ্রতি ৭০ টাকা, বিদেশি পর্যটক ১ হাজার টাকা। সঙ্গে ১৫% ভ্যাট প্রযোজ্য হবে।

কিভাবে যাবেন[সম্পাদনা]

বাসে করে[সম্পাদনা]

ঢাকার গাবতলী কিংবা সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে মেঘনা পরিবহন (০১৭১৭১৭৩৮৮৫৫৩), পর্যটক পরিবহন (০১৭১১১৩১০৭৮) সাকুরা পরিবহন (০১৭১১০১০৪৫০), সোহাগ পরিবহন (০১৭১৮৬৭৯৩০২) ইত্যাদি বাসে বাগেরহাট যেতে হবে। নদী পথে খুলনা থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার এবং মংলা থেকে প্রায় আট কিলোমিটার দূরে এই পর্যটন কেন্দ্রটি অবস্থিত। তাই বাগেরহাটের মংলা বন্দর থেকে করমজল যাবার নৌযান ভাড়া করতে হয়। এছাড়া মোরেলগঞ্জ, শরণখোলা এবং খুলনার রূপসা থেকেও করমজল পর্যটন কেন্দ্রে যাওয়া যায়। তবে সবচেয়ে ভাল হয় সায়দাবাদ বাস স্ট্যান্ড থেকে সরাসরি মংলা যাওয়ার বাসে করে যাওয়া। মংলা ফেরি ঘাট থেকে ১০ জনের উপযোগী ইঞ্জিন চালিত নৌকার ভাড়া করা যায় তাহলে খরচ সাশ্রয় হবে।

রেলে করে[সম্পাদনা]

ঘুরে দেখুন[সম্পাদনা]

নৌকায় করে[সম্পাদনা]

হেঁটে[সম্পাদনা]

কি দেখবেন[সম্পাদনা]

রাত্রিযাপন[সম্পাদনা]

  • মোটেল পশুর, মোংলা বন্দর, বাগেরহাট, +৮৮০৪৬৬২-৭৫১০০মংলায় থাকার জন্য ভালো ব্যবস্থা হল মোটেল পশুর। বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের অধীনস্থ এটি। Linecons banknote.svg ১২০০-২০০০ ৳
  • হোটেল রয়্যাল, কেডিএ এভিনিউ, খুলনা, +৮৮০৪১-৭২১৬৩৮Linecons banknote.svg ১২০০-১৮০০ ৳
  • হোটেল ক্যাসেল সালাম, কেডিও এভিনিউ, খুলনা, +৮৮০৪১-৭২০১৬০Linecons banknote.svg ১২০০-১৮০০ ৳
  • হোটেল সিটি ইন, মজিদ স্বরনী, খুলনা, +৮৮০৪১-২৮৩৪০৬৭Linecons banknote.svg ১৬০০ - ২২০০ ৳
  • হোটেল জেলিকো, লোয়ার যশোর রোড, জেল টাওয়ার, খুলনা, +৮৮০৪১-৭২৫৯১২Linecons banknote.svg ৯৫০-১২৫০৳

খাওয়া[সম্পাদনা]

সতর্কতা[সম্পাদনা]

হারবাড়িয়া যেতে পশুর নদী পাড়ি দিতে হয়। এই নদী সবসময়ই কম-বেশি উত্তাল থাকে। তাই ভালো মানের ইঞ্জিন নৌকা নিয়ে যাওয়া উচিৎ। এছাড়া বন রক্ষী ছাড়া জঙ্গলের ভেতরে ঢুকবেন না। হরিণ ও কুমির প্রজনন কেন্দ্রের কোন প্রাণীকে খাবার দিবেন না।