এই নিবন্ধের জন্য GPX ফাইল ডাউনলোড করুন

এশিয়া > দক্ষিণ এশিয়া > বাংলাদেশ > খুলনা বিভাগ > সাতক্ষীরা জেলা > তালা উপজেলা

তালা উপজেলা

উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন


তালা উপজেলা বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার অন্তর্গত একটি প্রশাসনিক এলাকা। ৩৪৪.১৫ বর্গ কিমি আয়তনের এই উপজেলাটি ২২°৩২´ উত্তর অক্ষাংশ থেকে ২২°৫০´ উত্তর অক্ষাংশের এবং ৮৯°০৫´ পূর্ব দ্রাঘিমা থেকে ৮৯°২০´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত, যার উত্তরে কলারোয়া, কেশবপুরডুমুরিয়া উপজেলা; দক্ষিণে আশাশুনি উপজেলা; পূর্বে ডুমুরিয়াপাইকগাছা উপজেলা এবং পশ্চিমে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা

কিভাবে যাবেন?[সম্পাদনা]

রাজধানী ঢাকা থেকে উপজেলা সদরের দূরত্ব ২৫৫ কিলোমিটার এবং জেলা সদর হতে ২৫ কিলোমিটার। এই জেলাটি একটি উপকূলী অঞ্চল। এখানে সড়ক পথে আসাতে হয়। তবে, রেল যোগাযোগ বা বিমান বন্দর নেই বলে এই দুটি মাধ্যমে এখানকার কোনো স্থানে আসা যায় না।

আকাশপথ[সম্পাদনা]

এখানে কোন বিমানবন্দর না থাকায় সরাসরি আকাশপথে ভ্রমণ সম্ভব নয়। তবে ঢাকা থেকে পার্শ্ববর্তী জেলা যশোর বিমান বন্দরের নেমে ভাড়ায় চালিত গাড়ীতে তুলনামুলক স্বল্প সময়ে পৌছানো সম্ভব।

সড়কপথ[সম্পাদনা]

রাজধানী শহরের সংগে সরাসরি বাস যোগাযোগ আছে। আন্তঃজেলা বাস যোগাযোগব্যবস্থা আছে। ঢাকা থেকে তালা সাধারনত সড়ক পথেই যাতায়েত করা হয়ে থাকে। ঢাকা থেকে তালায় সড়ক পথে যাতায়েত করতে সময় লাগে ৭ থেকে ৮ ঘন্টা, তবে ফেরী পারাপারের সময় যানজট থাকলে সময় বেশী লাগে। গাবতলী ও সায়েদাবাদ টার্মিনাল থেকে বেশ কয়েকটি বাস ছেড়ে যায়। এ সব বাস গুলোর মধ্যে পর্যটক পরিবহন, ঈগল পরিবহন, দিগন্ত পরিবহন, হানিফ এন্টারপ্রাইজ, সুন্দরবন সার্ভিস প্রা: লি: দ্রুতি পরিবহন, আরা পরিবহন ও সোহাগ পরিবহন অন্যতম। সাতক্ষীরা ও খুলনা রুটের অনেক গাড়ী লঞ্চে যাত্রী পারাপার করে থাকে। লঞ্চে যাতায়াত করলে সময় ও অর্থ দুটোই কম লাগে।

সাতক্ষীরা থেকে বাস যোগে উপজেলা সদরে পৌছানো যায়। বিভাগীয় শহর খুলনা থেকে খুলনা টু পাইগাছা মহাসড়ক দিয়ে আসতে হয়।

নৌপথ[সম্পাদনা]

পার্শ্ববর্তী উপকূলীয় এলাকা হতে নৌপথে যোগাযোগ রয়েছে।

দর্শনীয় স্থানসমূহ[সম্পাদনা]

  1. তেতুঁলিয়া জামে মসজিদ,
  2. তালা বি.দে সরকারি হাইস্কুল (১৮৮৮),
  3. বালিয়া দহা কে এম এমসি ইনস্টিটিউশন (১৮৯৯),
  4. কুমিরা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় (১৯০২),
  5. মাগুরা পীর শাহ জয়নুদ্দিন আওলিয়ার মাজার,
  6. শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রম্মচারী শান্তি নিকেতন,
  7. রেজওয়ান খানের জমিদার বাড়ি।

খাওয়া দাওয়া[সম্পাদনা]

তালা চিংড়ি চাষের জন্য বিখ্যাত। এছাড়াও রয়েছে নোনা পানির মাছ।

রাত্রী যাপন[সম্পাদনা]

তালায় থাকার জন্য স্থানীয় পর্যায়ের কিছু সাধারণ মানের হোটেল রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় থাকার জন্যে রয়েছে উন্নতমানের -

  1. জেলা পরিষদ ডাকবাংলো - তালা।
  2. জেলা পরিষদ ডাকবাংলো - পাটকেলঘাটা।
  3. উত্তরণ রেষ্ট হাউজ - তালা।
  4. পল্লী বিদ্যুৎ রেষ্ট হাউজ - পাটকেলঘাটা।
  5. সাতক্ষীরা উন্নয়ন সংস্থা (সাস) রেষ্টহাউজ - তালা।

জরুরী নম্বরসমূহ[সম্পাদনা]

জননিরাপত্তা সম্পর্কিত যোগাযোগের জন্য
  • ওসি, তালাঃ মোবাইলঃ ০১৭১৩-৩৭৪ ১৪৩।