উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন


শ্যামনগর উপজেলা বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার অন্তর্গত একটি প্রশাসনিক এলাকা। ১৯৬৮.২৪ বর্গ কিমি আয়তনের এই উপজেলাটি ২১°৩৬´ উত্তর অক্ষাংশ থেকে ২২°২৪´ উত্তর অক্ষাংশের এবং ৮৯°০০´ পূর্ব দ্রাঘিমা থেকে ৮৯°১৯´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত, যার উত্তরে কালীগঞ্জআশাশুনি উপজেলা; দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর; পূর্বে কয়রাআশাশুনি উপজেলা এবং পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য।

কিভাবে যাবেন?[সম্পাদনা]

রাজধানী ঢাকা থেকে উপজেলা সদরের দূরত্ব ২৪৫ কিলোমিটার। এই জেলাটি একটি উপকূলী অঞ্চল। এখানে সড়ক পথে আসাতে হয়। তবে, রেল যোগাযোগ বা বিমান বন্দর নেই বলে এই দুটি মাধ্যমে এখানকার কোনো স্থানে আসা যায় না।

আকাশপথ[সম্পাদনা]

এখানে কোন বিমানবন্দর না থাকায় সরাসরি আকাশপথে ভ্রমণ সম্ভব নয়। তবে ঢাকা থেকে পার্শ্ববর্তী জেলা যশোর বিমান বন্দরের নেমে ভাড়ায় চালিত গাড়ীতে তুলনামুলক স্বল্প সময়ে পৌছানো সম্ভব।

সড়কপথ[সম্পাদনা]

রাজধানী শহরের সংগে সরাসরি বাস যোগাযোগ আছে। আন্তঃজেলা বাস যোগাযোগব্যবস্থা আছে। ঢাকা থেকে সাতক্ষীরা সাধারনত সড়ক পথেই যাতায়েত করা হয়ে থাকে। ঢাকা থেকে সাতক্ষীরা জেলায় সড়ক পথে যাতায়েত করতে সময় লাগে ৭ থেকে ৮ ঘন্টা, তবে ফেরী পারাপারের সময় যানজট থাকলে সময় বেশী লাগে। গাবতলী ও সায়েদাবাদ টার্মিনাল থেকে বেশ কয়েকটি বাস সাতক্ষীরার উদ্দেশ্য ছেড়ে যায়। এ সব বাস গুলোর মধ্যে পর্যটক পরিবহন, ঈগল পরিবহন, দিগন্ত পরিবহন, হানিফ এন্টারপ্রাইজ, সুন্দরবন সার্ভিস প্রা: লি: দ্রুতি পরিবহন, আরা পরিবহন ও সোহাগ পরিবহন অন্যতম। সাতক্ষীরা ও খুলনা রুটের অনেক গাড়ী লঞ্চে যাত্রী পারাপার করে থাকে। লঞ্চে যাতায়াত করলে সময় ও অর্থ দুটোই কম লাগে।

নৌপথ[সম্পাদনা]

পার্শ্ববর্তী উপকূলীয় এলাকা হতে নৌপথে যোগাযোগ রয়েছে।

দর্শনীয় স্থানসমূহ[সম্পাদনা]

  1. বংশীপুর শাহী মসজিদ (মুগল আমলে নির্মিত),
  2. নুরুল্লা খাঁ মাযার (নূরনগর,
  3. শ্যামনগর জমিদার বাড়ি,
  4. ছয় গম্বুজবিশিষ্ট হাম্মামখানা (বংশীপুর),
  5. যশোরেশ্বরী মন্দির (ঈশ্বরীপুর),
  6. চন্ডী ভৈরবের মন্দির (ঈশ্বরীপুর),
  7. যিশুর গির্জা (১৫৯৯),
  8. গোবিন্দ দেবের মন্দির (গোপালপুর, ১৫৯৩),
  9. নকিপুর হরিচরণ মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয় (১৮৯৯),
  10. জাহাজঘাটা নৌদুর্গ (খানপুর),
  11. কমিউনিটি বেজড কালচারাল ইকো ট্যুরিজম।

খাওয়া দাওয়া[সম্পাদনা]

সাতক্ষীরা চিংড়ি চাষের জন্য বিখ্যাত।

রাত্রী যাপন[সম্পাদনা]

শ্যামনগরে থাকার জন্য স্থানীয় পর্যায়ের কিছু সাধারণ মানের হোটেল রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় থাকার জন্যে রয়েছে উন্নতমানের -

  1. জেলা পরিষদ ডাকবাংলো - শ্যামনগর বাসষ্ট্যান্ড বাজার, শ্যামনগর।
  2. জেলা পরিষদ ডাকবাংলো - বুড়িগোয়ালিনী (নীলডুমুর), শ্যামনগর।
  3. টাইগার পয়েন্ট গেষ্ট হাউজ - মুন্সিগঞ্জ বাস ষ্ট্যান্ড এর পশ্চিমে, শ্যামনগর; ০১৯১২৮৪৮৮৪০।
  4. সুশীলন রেষ্ট হাউজ - মুন্সিগঞ্জ বাস ষ্ট্যান্ড এর পশ্চিমে, শ্যামনগর; ০১৭২০৫১০১৯৯।
  5. বরসা রিসোর্ট - কলবাড়ী, শ্যামনগর, জেলাঃ সাতক্ষীরা। 01715251963
  6. গোপালপুর পিকনিক কর্নার - গোপালপুর, শ্যামনগর; ০১৭৫৪৬৫০৯৩২।
  7. সুন্দরবন হোটেল - নকিপুর বাস ষ্ট্যান্ড, শ্যামনগর; ০১৭১০১২৬৬২৪।
  8. হোটেল সৌদিয়া- নকিপুর বাস ষ্ট্যান্ড, শ্যামনগর; ০১৭১১৪৫০০৩০।
  9. হোটেল জিকে আই - কলেজ রোড মোড় (জনতা ব্যাংকের উপর), শ্যামনগর; ০১৯১৬৬৬৯৮২১।
  10. হোটেল বরসা - মুন্সিগজ্ঞ বাসষ্ট্যান্ড, শ্যামনগর।

জরুরী নম্বরসমূহ[সম্পাদনা]

জননিরাপত্তা সম্পর্কিত যোগাযোগের জন্য
  • ওসি, শ্যামনগরঃ মোবাইলঃ ০১৭১৩-৩৭৪ ১৪৫।