উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

হরিপুর উপজেলা বাংলাদেশের একটি প্রশাসনিক এলাকা যা রংপুর বিভাগের ঠাকুরগাঁও জেলার অন্তর্ভূক্ত। হরিপুর উপজেলা ২৫°৪৭´ উত্তর অক্ষাংশ হতে ২৬°০০´ উত্তর অক্ষাংশের এবং ৮৮°০৫´ পূর্ব দ্রাঘিমা হতে ৮৮°১৫´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত। ২০১.০৬ বর্গ কিমি আয়তনের এই উপজেলাটির উত্তরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য ও রাণীশংকৈল উপজেলা; দক্ষিণে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য; পূর্বে রাণীশংকৈল উপজেলা এবং পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য অবস্থিত।

কিভাবে যাবেন?[সম্পাদনা]

দেশের যেকোন স্থান হতে হরিপুর উপজেলায় সরাসরি আসতে হলে কেবলমাত্র সড়কপথে আসতে হয়; রেল, আকাশ বা জলপথে এখানে সরাসরি আসার কোনো ব্যবস্থা এখনও গড়ে ওঠেনি। জেলা শহর ঠাকুরগাঁওয়ে রেললাইন থাকলেও হরিপুর উপজেলায় কোনো রেললাইন নেই। ঠাকুরগাঁওয়ে একটি বিমানবন্দর থাকলেও তা বর্তমানে অব্যবহৃত এবং নাব্যতা ও বড় নদ-নদী না-থাকায় এ জেলায় কোনো নৌ-পথও গড়ে ওঠেনি।

স্থল পথে[সম্পাদনা]

ঠাকুরগাঁও জেলা শহর হতে সড়ক পথে হরিপুর উপজেলার দূরত্ব ৩০ কি:মি: এবং সড়ক পথে ঢাকা হতে হরিপুর উপজেলার দূরত্ব ৪৮০ কিলোমিটার।

সড়কপথ[সম্পাদনা]

ঢাকা থেকে হরিপুর উপজেলায় আসতে হলে মহাসড়ক পথে টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, বগুড়া, গাইবান্ধা, রংপুর এবং দিনাজপুর জেলা হয়ে আসতে হয়। ঢাকা থেকে এখানে সরাসরি বাসে আসা যায়; আবার, ৭টি বিলাসবহুল পরিবহনের গাড়ীও ঢাকা-ঠাকুরগাঁও রুটে চলাচল করে। ঠাকুরগাঁও সদরের সাথে এই উপজেলার পাকা সড়ক পথে যোগাযোগ রয়েছে। তাছাড়াও উপজেলা সদর হতে ইউনিয়নগুলোতে যাওয়ার জন্য পাকা রাস্তা রয়েছে।

ঢাকার গাবতলী, মহাখালী, সায়েদাবাদ, শ্যামলী, কল্যানপুর, কলাবাগান, ফকিরাপুল, আসাদগেট - প্রভৃতি বাস স্টেশন থেকে হরিপুর ও ঠাকুরগাঁও আসার সরাসরি দুরপাল্লার এসি ও নন-এসি বাস সার্ভিস আছে; এগুলোতে সময় লাগে ৭.৩০ হতে ১০ ঘন্টা। ঢাকা থেকে হরিপুর ও ঠাকুরগাঁওয়ের উদ্দেশ্যে হানিফ, নাবিল, বাবলু, কেয়া প্রভৃতি পরিবহণ কোম্পানীর বাস আছে প্রতিদিন।

  • কর্ণফুলী পরিবহনঃ ঢাকা : মোবাইল ০১৬৭৪-৮০৫ ১৬৪ (আবদুল্লাহপুর);
  • কেয়া পরিবহনঃ ঢাকা : মোবাইল ০১৭১১-১১৮৪০২ (কল্যাণপুর) এবং ঠাকুরগাঁও : ☎ ০৫৬১-৫২৪০২, মোবাইল ০১৭১৫-৭১৭৯০৭;
  • নাবিল পরিবহনঃ ঢাকা : ☎ ০২-৮১২৭৯৪৯ (আসাদ গেট) এবং ঠাকুরগাঁও : ০১৭৪২-৫৫৪৪২২;
  • বাবলু এন্টারপ্রাইজঃ ঢাকা : ☎ ০২-৮১২০৬৫৩, মোবাইল ০১৭১৬-৯৩২১২২ (শ্যামলী-রিং রোড), ০১৭১৬-৪৫১৮৫৫ (টেকনিক্যাল) এবং ঠাকুরগাঁও : ☎ ০৫৬১-৬১৯৪৬, মোবাইল ০১৭১৪-০৪৬২৯৮, ০১১৯০-৬৭২৮৭৯;
  • বালিয়াডাংগী এক্সপ্রেসঃ ঠাকুরগাঁও : মোবাইল ০১৭২৮-৫০৮৫৯৯, ০১১৯১-৮১৩১০৫;
  • শ্যামলী পরিবহনঃ ঢাকা : ☎ ০২-৯০০৩৩১, ৮০৩৪২৭৫ (কল্যাণপুর);
  • হানিফ এন্টারপ্রাইজঃ ঢাকা : ☎ ০২-৮১২৪৩৯৯, ৯১৩০৩৮৪, মোবাইল ০১৬৭৩-৯৫২৩৩৩ (কলেজ গেট), ০১৭২৭-২৯১১৪২(শ্যামলী-রিং রোড), ০১৭১৩-৪০২৬৬১ (কল্যাণপুর), ০১৭১৩-৪০২৬৭১, ০১৭১৩-৪০২৬৩১ (আরামবাগ) এবং ঠাকুরগাঁও : ☎ ০৫৬১-৫২৬৫৩, মোবাইল ০১৭১৩-২০১৭০৪, ০১৭১৮-০৮৯৪৪৯।
  • ঢাকা-হরিপুর ও ঠাকুরগাঁও রুটে সরাসরি চলাচলকারী পরিবহণে যাতায়তের ক্ষেত্রে ভাড়া হলোঃ
    • এসি বাসে - ৮০০/- (রেগুলার) ও ১২০০/- (এক্সিকিউটিভ) এবং
    • নন-এসি বাসে - ৩৫০/- হতে ৬০০/-।

রেলপথ[সম্পাদনা]

হরিপুর উপজেলায় কোনো রেলপথ নেই; রেললাইন কেবল মাত্র জেলা সদর পর্যন্ত বিস্তৃত।

ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে ঠাকুরগাঁওয়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা ট্রেনে সরাসরি ঠাকুরগাঁও পৌঁছে সেখান থেকে সড়কপথে হরিপুর আসা যায়। কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে প্রতিদিন একাধিক ট্রেন ঠাকুরগাঁওয়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ঢাকা – ঠাকুরগাঁও রুটে চলাচলকারী ট্রেনগুলো হলোঃ

  • পঞ্চগড় এক্সপ্রেস, দ্রুতযান এক্সপ্রেস এবং একতা এক্সপ্রেস।

ঢাকা-ঠাকুরগাঁও রুটে চলাচলকারী রেলে ঢাকা হতে ঠাকুরগাঁও আসার ক্ষেত্রে ভাড়া হলো -

  • এসি-বাথ - ১৮৩৩ টাকা;
  • ১ম শ্রেণির বাথ - ১১৯১ টাকা;
  • স্নিগদ্ধা- ৯৮৯ টাকা;
  • শোভন চেয়ার - ৫২০ টাকা।

এছাড়াও কাঞ্চন এক্সপ্রেস, সেভেনআপ এবং ডেমো ট্রেনটি পার্বতীপুর - রংপুর হয়ে চলাচল করে।

ট্রেন সম্পর্কিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেনঃ

  • কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন, ☎ ০২-৯৩৫৮৬৩৪,৮৩১৫৮৫৭, ৯৩৩১৮২২, মোবাইল নম্বর: ০১৭১১-৬৯১৬১২;
  • বিমানবন্দর রেলওয়ে ষ্টেশন, ☎ ০২-৮৯২৪২৩৯;
  • ওয়েবসাইট: www.railway.gov.bd।

আকাশ পথে[সম্পাদনা]

ঠাকুরগাঁওয়ে বিমানবন্দর থাকলেও তা চালু না-থাকায় এখানে সরাসরি আকাশ পথে আসা যায় না, তবে ঢাকা থেকে সরাসরি বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে সৈয়দপুর বিমানবন্দরের সাথে; ঢাকা থেকে সৈয়দপুর এসে সেখান থেকে সড়কপথে হরিপুর উপজেলায় আসা যায়। বাংলাদেশ বিমান, জেট এয়ার, নোভো এয়ার, রিজেন্ট এয়ার, ইউনাইটেড এয়ার - প্রভৃতি বিমান সংস্থার বিমান পরিষেবা রয়েছে ঢাকা থেকে সৈয়দপুর আসার জন্য।

বাংলাদেশ বিমানের একটি করে ফ্লাইট সপ্তাহে ৪ দিন ঢাকা-সৈয়দপুর ও সৈয়দপুর-ঢাকা রুটে চলাচল করে; এতে যাতায়তের ক্ষেত্রে ভাড়া লাগবে একপথে ৩,০০০/- এবং রিটার্ণ টিকিট ৬,০০০/-। বিমানটির সময়সূচী হলোঃ

  • ঢাকা হতে সৈয়দপুর - শনি, রবি, মঙ্গল, বৃহস্পতি - দুপুর ০২ টা ২০ মিনিট।
  • সৈয়দপুর হতে ঢাকা - শনি, রবি, মঙ্গল, বৃহস্পতি - দুপুর ০৩ টা ৩৫ মিনিট।

এই সম্পর্কিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেনঃ

    • ম্যানেজার, সৈয়দপুর বিমান বন্দর, মোবাইল - ০১৫৫৬-৩৮৩ ৩৪৯।

জল পথে[সম্পাদনা]

অপ্রচলিত মাধ্যম হিসাবে নৌপথ ব্যবহৃত হয়ে থাকে; তবে কেবলমাত্র স্থানীয় পর্যায় ছাড়া অন্য কোনো এলাকার সাথে, কিংবা ঢাকা থেকে বা অন্যান্য বড় শহর হতে সরাসরি কোনো নৌযান চলাচল করে না। অবশ্য, চরাঞ্চলে যোগাযোগের একমাত্র বাহন নৌযান।

দর্শনীয় স্থান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

  • হরিপুর জমিদার বাড়ী - ভাতুরিয়া;
  • আমাইদীঘি;
  • গড়গড়িয়া বিল;
  • মেদনীসাগর জামে মসজিদ / মেদনি সাগর শাহী মসজিদ;
  • গেদুড়া জামে মসজিদ;
  • ভাতুরিয়ার গড়;
  • বীর গড়;
  • ভবানীপুরের গড় - ভাতুরিয়া;
  • শাহ মখদুম-এর মাযার - বহরমপুর;
  • হরিপুর জামে মসজিদ;
  • বালিহারা জামে মসজিদ;
  • জাদুরাণী হারামাই জামে মসজিদ;
  • হাগড়ী মসজিদ - খলড়া;
  • হরিপুর দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয় (১৯৩৬);
  • যাদুরানী উচ্চ বিদ্যালয় (১৯৬৫);
  • কাঁঠালডাঙ্গী হাইস্কুল (১৯৬৭);
  • বীরগড় মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (১৯২০);
  • মিনাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (১৯২৩);
  • কাঁঠালডাঙ্গী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (১৯৩০);
  • হরিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (১৯৫৩);
  • বীরগড় দারুল উলম শরীফিয়া দাখিল মাদ্রাসা (১৯৪৯);
  • ফিশারিজ প্রকল্প - পাহারগাও, চৌরঙ্গী, ডাঙ্গীপাড়া ইউনিয়ন;
  • পশর ও গুটলিয়া বিল - হলদিবাড়ী, ডাঙ্গীপাড়া ইউনিয়ন;
  • সাপের খামার - চৌরঙ্গী, ডাঙ্গীপাড়া ইউনিয়ন;
  • সাঁওতালদের গ্রাম - ডাঙ্গীপাড়া ইউনিয়নের শিহিপুর ও দামোল এবং আমগাও ইউনিয়নের কামারপুকুর।

খাওয়া দাওয়া[সম্পাদনা]

‘সিদল ভর্তা’ এখানকার জনপ্রিয় খাবার, যা কয়েক ধরনের শুঁটকির সঙ্গে নানা ধরনের মসলা মিশিয়ে বেটে তৈরি করা হয়। এছাড়াও রয়েছে বিখ্যাত “হাড়িভাঙ্গা” আম, তামাক ও আখ। এখানে সাধারণভাবে দৈনন্দিন খাওয়া-দাওয়ার জন্য স্থানীয় হোটেল ও রেস্টুরেন্টগুলোতে সুস্বাদু খাবার পাওয়া যায়। স্থানীয় ঐতিহ্যবাহী খাবারগুলো হলো : পাটশাক ও লাফা শাকের ঝোল, সিদলের ভর্তা, চেং বা শাটি (টাকি) মাছের পোড়া বা সিদ্ধ ভর্তা, কচি কচু পাতার পোড়া বা সিদ্ধ ভর্তা, পেল্কা, কাঁচা আমের তরকারি, কাঁচা কাঁঠালের তরকারি, আমসি, টমেটোর টক, নতুন ধানের ভাকা পিঠা (ভাপা পিঠা), পাকোয়ান পিঠা, নুনাস বা নুনিয়া পিঠা, চিতুয়া পিঠা, গুড়গুড়িয়া পিঠা, আঁখের নতুন গুড়ের খৈয়ের মুড়কি, মুড়ির নাড়ু, চিড়ার চিপড়ি।

থাকা ও রাত্রী যাপনের স্থান[সম্পাদনা]

হরিপুর উপজেলায় থাকার জন্য স্থানীয় পর্যায়ের কিছু সাধারণ মানের আবাসিক হোটেল রয়েছে। এছাড়াও সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় থাকার জন্য উন্নতমানের আবাসন সুবিধা পাওয়া যায় -

  • সার্কিট হাউস, ঠাকুরগাঁও, ☎ ০৫৬১-৫৩৪০০;
  • জেলা পরিষদ ডাক বাংলো, হরিপুর , ঠাকুরগাঁও।

জরুরী নম্বরসমূহ[সম্পাদনা]

জননিরাপত্তা সম্পর্কিত যোগাযোগের জন্য
  • ওসি ঠাকুরগাঁওঃ মোবাইল ০১৭১৩-৩৭৩ ৯৮৫;
  • ওসি হরিপুরঃ মোবাইল ০১৭১৩-৩৭৩ ৯৮৯।