এই নিবন্ধের জন্য GPX ফাইল ডাউনলোড করুন

এশিয়া > দক্ষিণ এশিয়া > বাংলাদেশ > রাজশাহী বিভাগ > নাটোর জেলা > নাটোর রাজবাড়ী

নাটোর রাজবাড়ী

উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

নাটোর রাজবাড়ি, বাংলাদেশের নাটোর সদর উপজেলায় অবস্থিত একটি রাজবাড়ি, যা নাটোর রাজবংশের একটি স্মৃতিচিহ্ন।

প্রতিষ্ঠার ইতিহাস[সম্পাদনা]

অষ্টাদশ শতকের শুরুতে নাটোর রাজবংশের উৎপত্তি হয়। ১৭০৬ সালে পরগণা বানগাছির জমিদার গণেশ রায় ও ভবানী চরণ চৌধুরী রাজস্ব প্রদানে ব্যর্থ হয়ে চাকরিচ্যুত হন। দেওয়ান রঘুনন্দন জমিদারিটি তার ভাই রাম জীবনের নামে বন্দোবস্ত নেন। এভাবে নাটোর রাজবংশের পত্তন হয়। রাজা রাম জীবন নাটোর রাজবংশের প্রথম রাজা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেন ১৭০৬ সালে, মতান্তরে ১৭১০ সালে। ১৭৩৪ সালে তিনি মারা যান। ১৭৩০ সালে রাণী ভবানীর সাথে রাজা রাম জীবনের দত্তক পুত্র রামকান্তের বিয়ে হয়। রাজা রাম জীবনের মৃত্যুর পরে রামকান্ত নাটোরের রাজা হন। ১৭৪৮ সালে রাজা রামকান্তের মৃত্যুর পরে নবাব আলীবর্দী খাঁ রাণী ভবানীর ওপর জমিদারি পরিচালনার দায়িত্ব অর্পণ করেন। রাণী ভবানীর রাজত্বকালে তার জমিদারি বর্তমান রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, কুষ্টিয়া, যশোর, রংপুর, পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ, বীরভূম, মালদহ জেলা পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। বিশাল জমিদারির রাজধানী নিজ জন্মভূমিতে স্থাপনের নিমিত্তে রঘুনন্দন, রাম জীবন ও পণ্ডিতবর্গ তৎকালীন ভাতঝাড়ার বিলকে নির্বাচন করেন। ভাতঝাড়ার বিল ছিল পুঠিয়া রাজা দর্পনারায়ণের সম্পত্তি। এজন্য রঘুনন্দন ও রামজীবন রাজা দর্পনারায়ণের নিকটে বিলটি রায়তী স্বত্বে পত্তনীর আবেদন করেন। নতুন রাজাকে রাজা দর্পনারায়ণ জমিটি ব্রহ্মোত্তোর দান করেন। রামজীবন বিলে দীঘি, পুকুর ও চৌকি খনন করে সমতল করেন এবং রাজবাড়ি স্থাপন করেন। এলাকাটির নামকরণ করেন নাট্যপুর। ১৭০৬-১৭১০ সালে নাটোর রাজবাড়ি নির্মিত হয়েছিল। রঘুনন্দন বড়নগরে(মুর্শিদাবাদে) থাকতেন।

বর্ণনা[সম্পাদনা]

রাজবাড়ির মোট আয়তন ১২০ একর। ছোট-বড় ৮টি ভবন আছে। ২টি গভীর পুকুর ও ৫টি ছোট পুকুর আছে। রাজবাড়ি বেষ্টন করে আছে দুই স্তরের বেড়চৌকি। পুরো এলাকা ২টি অংশে বিভক্ত – ছোট তরফ ও বড় তরফ। রাজবাড়ির উল্লেখযোগ্য মন্দিরগুলো হল শ্যামসুন্দর মন্দির, আনন্দময়ী কালিবাড়ি মন্দির, তারকেশ্বর শিব মন্দির।

যেভাবে যাবেন[সম্পাদনা]

ঢাকা থেকে নাটোর প্রায় ১৯৬.২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সড়কপথ ও রেলপথ দুভাবেই নাটোরে পৌছানো যাবে। নাটোর জিরো পয়েন্ট থেকে ৪.৫ কিমি উত্তরে নাটোর উত্তরা গণভবন । সাধারণত স্থানীয় যানবাহনে উত্তরে গনভবনে পৌঁছাতে হয়।

বাস[সম্পাদনা]

ঢাকার গাবতলী ও মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে নাটোর যাবার জন্য এসি-ননএসি বাস আছে। এর মধ্যে দেশ ট্রাভেলস, ন্যাশনাল ট্রাভেলস, হানিফ ইন্টারপ্রাইজ, তুহিন এলিট, গ্রামীণ ট্রাভেলস উল্লেখযোগ্য।

  • দেশ ট্রাভেলস, ☎০১৭৪৬৪৭৪৭৮০ - ৩৭০ টাকা
  • ন্যাশনাল ট্রাভেলস, ☎০১৭২৭৫৪৫৪৬০ - ৩৭০ টাকা
  • হানিফ ইন্টারপ্রাইজ, ☎০১৭২০২১৪৭৮৫ - ৩৭০ টাকা
  • তুহিন এলিট - ৩৭০ টাকা
  • গ্রামীণ ট্রাভেলস - ৩৭০ টাকা
  • শ্যামলী পরিবহণ - ৩৭০ টাকা

ট্রেন[সম্পাদনা]

ঢাকা ও নাটোরের মধ্যে প্রতিদিন প্রচুর বিলাসবহুল ইন্টারসিটি সার্ভিস রয়েছে। প্রধানরা হল পদ্মা এক্সপ্রেস, সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস এবং ধূমকেতু এক্সপ্রেস।

  • সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস - রাজশাহী থেকে দুপুর ২ টা এবং ঢাকা থেকে নাটোর পর্যন্ত ৮:১৫ এ।
  • পদ্মা এক্সপ্রেস - রাজশাহী থেকে সকাল ১০ টা ৪৫ মিনিটে এবং নাটোর থেকে ঢাকা পর্যন্ত সকাল ১১ টা।
  • ধূমকেতু এক্সপ্রেস - ঢাকা থেকে সকাল সাড়ে ৬ টায় চালু ট্রেন রাজশাহীতে সকাল ১২ টায় পৌঁছায় এবং সকাল ১১:২০ মিনিটে রাজশাহী হতে ছেড়ে যাওয়া ট্রেন বিকেল ৪ টা ২০ মিনিটে ট্রেন ঢাকা পৌঁছায়।

বর্তমানে সিল্ক সিটি এক্সপ্রেসটি রবিবারে তাদের সেবা প্রদান করছে না, পদ্মা এক্সপ্রেসে মঙ্গলবারে তাদের কোন সেবা প্রদান করছে না, এবং ধূমকেতু এক্সপ্রেস সোমবারে চলাচল বন্ধ রাখছে।

দীর্ঘ দূরত্বের ট্রেনের জন্য প্রধান স্টেশন রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন, যা রাজশাহী শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত। কখনো কখনো বিশেষ কারনে ট্রেনের যাত্রা সময় পরিবর্তন হতে পারে।

আকাশ পথে[সম্পাদনা]

নাটোর হতে প্রায় ৫০ কিঃমিঃ পশ্চিমে রাজশাহীতে 'শাহ মখদুম বিমানবন্দর' অবস্থিত। এখানে রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে উড়োজাহাজ চলাচল করে।

যেখানে থাকবেন[সম্পাদনা]

নাটোর জেলায় থাকার জন্য হোটেল ও গেস্টহাউজের মধ্যে রয়েছে:

  1. হোটেল ভিআইপি, বড় হরিষপুর, নাটোর (এই হোটেলটি কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের ১ কিলোমিটার পশ্চিমে এবং মাদ্রাসা মোড়ের পূর্বে অবস্থিত।), +৮৮০৭৭১-৬৬০৯৭, +৮৮০১৭১৮৬৭৩৭৩৫
  2. হোটেল মিল্লাত, মাদ্রাসা মোড়, নাটোর সদর, নাটোর (এই হোটেলটি কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের ১ কিলোমিটার পশ্চিমে এবং মাদ্রাসা মোড়ের পূর্বে অবস্থিত।)।
  3. হোটেল বনফুল, আহমেদপুর,বড়াইগ্রাম,নাটোর।, +৮৮০১৭২৬৩৭৬৬৮৮
  4. জেলা পরিষদ ডাক বাংলো, বাগাতিপাড়া, বাগাতিপাড়া উপজেলা (বাগাতিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যানের বাস ভবন ও উপজেলা পরিষদ মসজিদ সংলগ্ন)।
  5. হোটেল প্রিন্স, রেলওয়ে স্টেশন বাজার, নাটোর সদর, নাটোর (নাটোর রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন), +৮৮০৭৭১-৬১৩৫৬, +৮৮০১৭৪৬০২৯৪২৯
  6. হোটেল রাজ, মাদ্রাসা মোড়, নাটোর সদর, নাটোর, +৮৮০৭৭১-৬৬৬৬০, +৮৮০১৭২৭৩৭১৫০০
  7. হোটেল রুখসানা, কানাইখালী, পুরান বাসস্ট্যান্ড, নাটোর সদর, নাটোর, +৮৮০৭৭১-৬২৪৩১, +৮৮০১৭৩৯৯৮৭০১৭
  8. নাটোর বোর্ডিং, নিচাবাজার, হাসপাতাল সড়ক, নাটোর সদর, নাটোর, +৮৮০৭৭১-৬২০০১
  9. নাটোর সুগার মিলস গেস্টহাউজ, নাটোর সুগার মিলস এলাকা, নাটোর সদর, নাটোর
  10. বিসমিল্লাহ হোটেল, গুরুদাসপুর উপজেলা কমপ্লেক্স, গুরুদাসপুর, নাটোর।
  11. চাঁচকৈর হোটেল ও রেস্টুরেন্ট, চাঁচকৈর বাজার,গুরুদাসপুর উপজেলা, নাটোর (গুরুদাসপুর উপজেলার চাঁচকৈর বাজারে চাঁচকৈর হোটেল ও রেস্টুরেন্ট অবস্থিত)।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]