এই নিবন্ধের জন্য GPX ফাইল ডাউনলোড করুন
এশিয়া > দক্ষিণ এশিয়া > বাংলাদেশ > চট্টগ্রাম বিভাগ > চট্টগ্রাম জেলা > সীতাকুণ্ড উপজেলা

সীতাকুণ্ড উপজেলা

উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
চন্দ্রনাথ পাহাড়

সীতাকুণ্ড বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা।

জানুন[সম্পাদনা]

সীতাকুণ্ড উপজেলার মানচিত্র.svg

চট্টগ্রাম জেলা সদর থেকে প্রায় ৩৭ কিলোমিটার উত্তরে ২২°২২´ থেকে ২২°৪২´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯১°৩৪´ থেকে ৯১°৪৮´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ জুড়ে অবস্থিত সীতাকুণ্ড উপজেলার আয়তন ২৭৩.৪৭ বর্গ কিলোমিটার। সীতাকুণ্ড থানা গঠিত হয় ১৯৭৯ সালে এবং থানাকে উপজেলায় রূপান্তর করা হয় ১৯৮৩ সালে। সীতাকুণ্ড উপজেলায় বর্তমানে ১টি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়ন রয়েছে।

নামকরণ[সম্পাদনা]

প্রাচীন ধর্মগ্রন্থ ও ইতিহাস ঘাঁটলে জানা যায়, প্রাচীন কালে এখানে মহামুণি ভার্গব বসবাস করতেন। অযোদ্ধার রাজা দশরথের পুত্র রামচন্দ্র তাঁর বনবাসের সময় এখানে এসেছিলেন। মহামুণি ভার্গব তাঁরা আসবেন জানতে পেরে তাঁদের স্নানের জন্য তিনটি কুণ্ড সৃষ্টি করেন এবং রামচন্দ্রের এখানে ভ্রমণ কালে তাঁর স্ত্রী সীতা এই কুণ্ডে স্নান করেন। এই কারণেই এখানকার নাম সীতাকুণ্ড বলে অনেকের ধারণা।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী সীতাকুণ্ড উপজেলার জনসংখ্যা ৩,৩৫,১৭৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১,৮২,২২৩ জন এবং মহিলা ১,৫২,৯৫৫ জন। এ উপজেলার ৮৬% লোক মুসলিম, ১৩% হিন্দু এবং ১% বৌদ্ধ ও অন্যান্য ধর্মাবলম্বী।

কিভাবে যাবেন[সম্পাদনা]

সড়কপথে[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম শহরের অলংকার মোড় এলাকা থেকে ঢাকা ট্রাঙ্ক রোড হয়ে বাস বা সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে সীতাকুণ্ড যাওয়া যায়।

রেলপথে[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম শহরের বটতলী রেলস্টেশন থেকে রেলযোগেও সীতাকুণ্ড যাওয়া যায়।

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

  • ভাটিয়ারী ভাটিয়ারী বাস ষ্টেশন থেকে বাংলাদেশ মিলিটারী একাডেমী, গলফ ক্লাব সংলগ্ন।
  • চন্দ্রনাথ পাহাড় সীতাকুণ্ড বাজার থেকে ৪ কিলোমিটার দূরে চন্দ্রনাথ পাহাড় অবস্থিত। এখানে পায়ে হেঁটে অথবা রিক্সায় চড়ে যাওয়া যাবে।
  • ব্যাসকুণ্ড ও চন্দ্রনাথ মন্দির সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদ থেকে রিক্সা বা সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে ব্যাসকুণ্ড, তারপর পায়ে হেঁটে প্রায় ৩ কিলোমিটার পাহাড়ের উপরে চন্দ্রনাথ মন্দির।
  • বিস্তীর্ণ সমুদ্র সৈকত ও কুমিরা ফেরীঘাট সম্পূর্ণ সীতাকুণ্ড উপজেলা জুড়ে রয়েছে সমুদ্র সৈকত এবং ফেরীঘাট কুমিরা ইউনিয়নে অবস্থিত।
  • ইকো পার্ক ও বোটানিক্যাল গার্ডেন সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদ থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের এক কিলোমিটার দক্ষিণে সীতাকুণ্ড পৌরসভার মধ্যেই ইকো পার্কের অবস্থান। রিকসা কিংবা সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোযোগে সীতাকুণ্ড উপজেলা পরিষদ থেকে খুব সহজে পৌঁছা যায়।
  • সম্ভুনাথ মন্দির সীতাকুণ্ড কলেজ রোড দিয়ে ১ কিলোমিটার ভিতরে অবস্থিত।
  • সহস্রধারা ঝর্ণা সীতাকুণ্ড উপজেলার চন্দ্রনাথ রির্জাভ ফরেস্ট ব্লকের চিরসবুজ বনাঞ্চল সমৃদ্ধ সীতাকুণ্ড ইকোপার্কে এ ঝর্ণাটি অবস্থিত।
  • বাঁশবাড়িয়া সমুদ্র সৈকত ও রাবার বাগান চট্টগ্রাম নিউ মার্কেট থেকে সরাসরি বাঁশবাড়িয়া পর্যন্ত ৭নং গাড়ি রয়েছে, ভাড়া পড়বে ৩৫ টাকা। তারপর পায়ে হেঁটে বাঁশবাড়িয়া বাজার অতিক্রম করে রেল লাইন এর পরেই প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যময় বাঁশবাড়িয়া রাবার বাগান। বাঁশবাড়িয়া বাজার থেকে রিক্সা বা সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে অথবা পায়ে হেঁটে সমুদ্র সৈকতে যাওয়া যায়।
  • 1 গুলিয়াখালি সমুদ্র সৈকত (মুরাদপুর বীচ), গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত এটি সীতাকুণ্ডের সীতাকুণ্ড বাজার থেকে ৫ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিতসৈকত জুড়ে সবুজ গালিচার বিস্তীর্ণ ঘাস দেখা যায়, যা অন্যান্য সমুদ্র সৈকত থেকে এটিকে করেছে অন্যন্য। এই সবুজের মাঝ দিয়েে এঁকে বেঁকে গেছে সরু নালা। নালাগুলো জোয়ারের সময় পানিতে ভরে উঠে। পাখি, ঢেউ আর বাতাসের মিতালীর অনন্য অবস্থান দেখা যায় এই সমুদ্র সৈকতে। উইকিপিডিয়ায় গুলিয়াখালি সমুদ্র সৈকত

কোথায় থাকবেন[সম্পাদনা]

সীতাকুণ্ড চট্টগ্রাম মহানগরীর খুব কাছে হওয়ায় ভ্রমণ শেষে মহানগরীর যে কোন জায়গায় সুলভে থাকতে পারেন। এছাড়া সীতাকুণ্ডে থাকার জন্য সরকারি পরিচালনাধীন উপজেলা পরিষদ ডাক বাংলো ছাড়াও ব্যক্তি মালিকানাধীন সুলভ মূল্যে থাকার মত হোটেল রয়েছে।

খাওয়া দাওয়া[সম্পাদনা]

সীতাকুণ্ড পৌরসভা, কুমিরা, ফৌজদাররহাট ইত্যাদি এলাকায় যে কোন রেস্টুরেন্টে সুলভ মূল্যে খাওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।