উইকিভ্রমণ থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন

ময়মনসিংহ বিভাগ বাংলাদেশের একটি প্রশাসনিক অঞ্চল। এটি বাংলাদেশের উত্তর-মধ্যাঞ্চলে অবস্থিত। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর পূর্ব থেকেই (অর্থাৎ, পাকিস্তান আমল থেকেই) বৃহত্তর ময়মনসিংহ (সাবেক ময়মনসিংহ জেলা) ও জামালপুর জেলা ছিল ঢাকা বিভাগের অন্তর্গত; পরবর্তীকালে সরকারের প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস কার্যক্রমের সূত্রে ২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর বৃহত্তর ময়মনসিংহ ও জামালপুরের চারটি জেলা, ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুরনেত্রকোনা জেলা নিয়ে বাংলাদেশের অষ্টম বিভাগ ময়মনসিংহ গঠিত হয়। ১০,৫৮৪ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এই বিভাগের ভৌগোলিক অবস্থান ২৪°১০´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯০°২৫´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে। এর উত্তরে ভারতের মেঘালয় (খাসিয়া ও জয়ন্তীয়া পাহাড়), দক্ষিণে ঢাকা বিভাগ ও পূর্বে সিলেট বিভাগ এবং পশ্চিমে রাজশাহীরংপুর বিভাগ

জেলা[সম্পাদনা]

কীভাবে যাবেন?[সম্পাদনা]

স্থলপথে[সম্পাদনা]

সড়ক পথে ঢাকা হতে ময়মনসিংহের দূরত্ব ১২১ কিলোমিটার এবং রেলপথে ঢাকা হতে ময়মনসিংহ রেল স্টেশনের দূরত্ব ১২৩ কিলোমিটার।

সড়কপথ[সম্পাদনা]

ঢাকার সায়েদাবাদমহাখালী বাস স্টেশন থেকে ময়মনসিংহে আসার সরাসরি দুরপাল্লার এসি ও নন-এসি বাস সার্ভিস আছে; এগুলোতে সময় লাগে ২.৩০ হতে ৪.০০ ঘণ্টা। ঢাকা থেকে ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে শামীম, এনা, সৌখিন, নূর, নিরাপদ ট্রাভেলস্, আলম এশিয়া, বিলাস, এস আলম, সিসকম, ড্রিমল্যান্ড, মামুন, শ্যামলী প্রভৃতি পরিবহন কোম্পানীর বাস আছে প্রতি ১০ মিনিট পর পর।

  • এনা পরিবহন: ☎ +৮৮০১৭৬০-৭৩৭ ৬৫০ (মহাখালী), +৮৮০১৭৬০-৭৩৭ ৬৫২ (এয়ারপোর্ট), +৮৮০১৭৬০-৭৩৭ ৬৫১ (উত্তরা), +৮৮০১৭৬০-৭৩৭ ৬৫৩ (টঙ্গী স্টেশন রোড), +৮৮০১৮৬৯-৮০২ ৭৩৬ (ফকিরাপুল), +৮৮০১৮৬৯-৮০২ ৭৩১ (মিরপুর), +৮৮০১৯১৬-২৭৮ ৫২৬ (ভেলানগর, নরসিংদী), +৮৮০১৯৪১-৭১৪ ৭১৪ (শিববাড়ী, গাজীপুর), +৮৮০১৮৬৯-৮০২ ৭৩৪ (চৌরাস্তা, গাজীপুর), +৮৮০১৭৩৭-১৫১ ১৮৪ (শেরপুর), +৮৮০১৮৩৪-৮৯৮ ৫০৭ (ময়মনসিংহ)।
  • ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে সরাসরি চলাচলকারী পরিবহনে আসার ক্ষেত্রে ভাড়া হলোঃ
    • এসি বাসে - ৩৫০/- - ২৫০/- এবং
    • নন-এসি বাসে - ৩০০/- - ১৫০/-।

রেলপথ[সম্পাদনা]

ঢাকার কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা ট্রেনে সরাসরি আসা যায়। কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে প্রতিদিন একাধিক ট্রেন ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে চলাচলকারী রেলে ঢাকা হতে ময়মনসিংহ আসার ক্ষেত্রে ভাড়া হলো -

  • ২য় শ্রেণির সাধারণ - ৩৫ টাকা;
  • ২য় শ্রেণির মেইল - ৫০ টাকা;
  • কমিউটার - ৬০ টাকা;
  • সুলভ - ৭০ টাকা;
  • শোভন - ১২০ টাকা;
  • শোভন চেয়ার - ১৪০ টাকা;
  • ১ম শ্রেণির চেয়ার - ১৮৫ টাকা;
  • ১ম শ্রেণির বাথ - ২৮০ টাকা;
  • স্নিগ্ধা - ২৭১ টাকা;
  • এসি সীট - ৩২২ টাকা এবং
  • এসি বাথ - ৪৮২ টাকা।

ট্রেন সম্পর্কিত তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেন:

  • কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন, ☎ ০২-৯৩৫৮৬৩৪,৮৩১৫৮৫৭, ৯৩৩১৮২২, মোবাইল নম্বর: +৮৮০১৭১১৬৯১৬১২;
  • বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশন, ☎ ০২-৮৯২৪২৩৯;
  • ওয়েবসাইট: www.railway.gov.bd।

আকাশ পথে[সম্পাদনা]

বিমানবন্দর না-থাকায় এখানে সরাসরি বিমানে আসা যায় না।

জল পথে[সম্পাদনা]

অপ্রচলিত মাধ্যম হিসাবে নৌপথ ব্যবহৃত হয়ে থাকে; তবে সরাসরি কোনো নৌযান চলাচল করে না। অপরদিকে, হাওড় এলাকায় যোগাযোগের একমাত্র বাহন নৌযান।

দর্শনীয় স্থান ও স্থাপনা[সম্পাদনা]

  • ময়মনসিংহ

শশী লজ, গৌরীপুর লজ, আলেকজান্ডার ক্যাসেল, শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন সংগ্রহশালা, স্বাধীনতা স্তম্ভ, শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন পার্ক, ময়মনসিংহ জাদুঘর, বোটানিক্যাল গার্ডেন, নজরুল স্মৃতি জাদুঘর, মুক্তাগাছা জমিদারবাড়ি, মহারাজ সূর্যকান্তের বাড়ি, গৌরীপুর রাজবাড়ি, বীরাঙ্গনা সখিনার মাজার,কেল্লা বোকাই নগর, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বিপিন পার্ক, ঐতিহাসিক সার্কিট হাউস ময়দান, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, কৃষি জাদুঘর, আঞ্জুমানে ঈদগাহ ময়দান, চীন-বাংলা দ্বিতীয় মৈত্রী সেতু, রেল ব্রিজ, আঠার বাড়ি জমিদার বাড়ি, বাংলাদেশ ব্যাংক, রামগোপালপুর জমিদারবাড়ি, ফুলবাড়িয়া অর্কিড বাগান, চীনা মাটির টিলা, আবদুল জববার স্মৃতি জাদুঘর, কুমিরের খামার, তেপান্তর ফিল্ম সিটি।

  • জামালপুর

হজরত শাহ জামালের (রহ.) মাজার, হজরত শাহ কামালের (রহ.) মাজার, পাঁচ গম্বুজবিশিষ্ট রসপাল জামে মসজিদ (উনবিংশ শতাব্দী), নরপাড়া দুর্গ (ষোড়শ শতাব্দী), গান্ধী আশ্রম, দয়াময়ী মন্দির, দেওয়ানগঞ্জের সুগার মিলস, লাউচাপড়া পিকনিক স্পট।

  • নেত্রকোনা

উপজাতীয় কালচারাল একাডেমী, বিজয়পুর পাহাড়ে চিনামাটির নৈসর্গিক দৃশ্য, রানীখং মিশন, টংক শহীদ স্মৃতিসৌধ, রানীমাতা রাশমণি স্মৃতিসৌধ, কমলা রানী দীঘির ইতিহাস, নইদ্যা ঠাকুরের (নদের চাঁদ) লোক-কাহিনী, সাত শহীদের মাজার, হজরত শাহ সুলতান কমরউদ্দিন রুমির (রহ.) মাজার, রোয়াইলবাড়ি কেন্দুয়া।

  • শেরপুর

গড় জরিপার দুর্গ, দরবেশ জরিপ শাহের মাজার, বারদুয়ারী মসজিদ, হযরত শাহ কামালের মাজার, শের আলী গাজীর মাজার, কসবার মুগল মসজিদ, ঘাঘরা লস্কর বাড়ি মসজিদ, মাইসাহেবা মসজিদ, নয়আনী জমিদারের নাট মন্দির, আড়াই আনী জমিদার বাড়ি, পৌনে তিন আনী জমিদার বাড়ি, গজনী অবকাশ কেন্দ্র।

খাওয়া দাওয়া[সম্পাদনা]

স্থানীয় পর্যায়ের বিখ্যাত খাদ্য হলো মুক্তাগাছার মন্ডা, কালীবাড়ির পেড়া সন্দেশ ও দই। এছাড়াও স্থানীয় মাছ, আনারস এবং কাঠালের দারুণ সুখ্যাতি রয়েছে। এখানে সাধারণভাবে দৈনন্দিন খাওয়া-দাওয়ার জন্য স্থানীয় হোটেল ও রেস্টুরেন্টগুলোতে সুস্বাদু খাবার পাওয়া যায়।

থাকা ও রাত্রি যাপনের স্থান[সম্পাদনা]

ময়মনসিংহে থাকার জন্য স্থানীয় পর্যায়ের কিছু সাধারণ মানের হোটেল রয়েছে। এছাড়াও থাকার জন্য সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে কিছু উন্নতমানের কিছু রেস্ট হাইজ ও হোটেলও রয়েছে -

  • সার্কিট হাউস, ময়মনসিংহ;
  • নজরুল ভিআইপি ডাকবাংলো : ত্রিশাল, ময়মনসিংহ;
  • জিটিআই ডরমিটরী : বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ, +৮৮০১৭১৫-৬২৬ ৮৭২;
  • হোটেল আমির ইন্টারন্যাশনাল : স্টেশন রোড, ময়মনসিংহ, ☎ ০৯১-৫১৫০০, ৬৩৩৭৬, মোবাইল: +৮৮০১৭১১-১৬৭ ৯৪৮, ইমেইল- hotelamir_2000@yahoo.com, ওয়েব: www.hotelamirbd.com;
  • হোটেল মোস্তাফিজ ইন্টারন্যাশনাল : গঙ্গাদাস গুহরোড, ময়মনসিংহ, ☎ ০৯১-৬৩৮৭০, ৬৩৮৭১;
  • হোটেল খাঁন ইন্টারন্যাশনাল : মহারাজা রোড, ময়মনসিংহ, ☎ ০৯১-৬৫৯৯৫, মোবাইল: +৮৮০১৭১৫-২৮১ ৬৭৮;
  • রিভার প্যালেস : তালতলা ডোলাদিয়া, খাগডহর, ময়মনসিংহ, ☎ ০৯১-৬৬১৫০-১, মোবাইল: +৮৮০১৭১০-৮৫৭ ০৫৪।